Valentines Day Special

ভ্যালেন্টাইস ডে‘তে একটা স্পেশ্যাল লেখা না লিখলে কি হয় বলুন ?

প্রিয় ভাইয়া সমাজ,

কখনোই এমন মেয়ের প্রেমে পড়বেন না , যে বুকিশ। শপিং করার থেকে যে বই পড়তে বেশি পছন্দ করে। যে মেয়ে ওয়ার্কহোলিক তাকে কখনোই প্রেম প্রস্তাব করবেন না। এদের মূল প্রেম হচ্ছে নিজের স্বপ্ন, লেখাপড়া এবং কাজের সাথে । এদের এড্রেনালিন রাশ স্যাটিসফাইড সেক্স করার পরে যতখানি ঘটে তার থেকে অনেক বেশি ঘটে দারুন একটা থ্রিলার পড়ার সময়ে , একটা প্রজেক্ট সফলভাবে শেষ করার পরে।

স্বপ্নবাজ মেয়েকে ভালোবাসি বলবেন না। কারন ওরা ওদের স্বপ্নে বুঁদ থাকে। নিজের স্বপ্ন ফেলে রেখে আপনার স্বপ্ন সে ধারনা করবে কিনা ভাবতে হবে।

সিরিয়াস স্বভাবের অনুভূতিশীল কোন মেয়ের প্রেমে একদম পড়বেন না। এরা কথা, কাজে স্হূলতা পছন্দ করে না। কথায় কথায় ফান এরা বোঝে না। সরাসরি বিরক্ত দেখাবে। মুখে সারাক্ষণ বকবক এরা করে না। তবে কাজ দিয়ে এরা তাদের উপস্থিতি জানান দিতে ভালোবাসে।

মেয়ে বলেই মেয়েলি শারীরিক কেরিক্যাচার এবং “আমি নরম কিচ্ছুটি বুঝি না, কিচ্ছুটি পারি না, এখনো দুধ কলা খাই ” এক্টিং না জানা মেয়ের প্রেমে পড়ার আগে ভাবুন খুব করে। কারন এরা কখনো অপেক্ষা করে না টগবগ টগবগ করে মার্সিডিজে চড়ে রাজপুত্র এসে সোনার কাঠি রূপার কাঠি বুলিয়ে তাদের ঘুম ভাঙাবে । এরা নিজেরাই মার্সিডিজ চালায়।

স্বশিক্ষিত , স্বাবলম্বী, স্বাধীনচেতা মেয়ের থেকে একশ হাত দূরে থাকবেন। কারন একে আপনি যতই পেইন দেবার চেষ্টা করেন না কেন এই মেয়ে পিছলে যাবে। পেইন নিবে না। নিজের ভেতরে ডুবে যাবে। আপনার পেইনরে গুনবে না। বড়জোর একবেলা ভাতের বদলে চা খেয়ে দুঃখবিলাস করে পরের বেলাতেই কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়বে।

ক্ষেপাটে এবং পাগলাটে স্বভাবের মেয়েকে ভুল করেও ভালোবাসবেন না। কারন এরা এতটাই ক্ষেপাটে যে আপনাকে এক দুবার সুযোগ দিলেও তৃতীয়বার আপনার অন্যায়কে এরা বুলশীট বলে ফেলবে। তাও হাসতে হাসতেই। এরা কিছুতেই শাবানা আন্টিকে আইডল মানে না। ভিক্টিম কার্ড এরা খেলে না। অভিযোগ জানায় না। বরং এরা মেরুদণ্ড টানটান করে বারবার উঠে দাঁড়ায়।

এমন মেয়েকে ভালোবেসে ফেলবেন না — যে খুব ভালো করে নিজেকে জানে – বোঝে এবং নিজের চাওয়া পাওয়া সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা রাখে। যে নিজের জীবনবোধ নিয়ে ভীষনভাবে আত্মবিশ্বাসী। কারন সে আপনার পিছুটান যেমন নিজে হবে না, ঠিক তেমনি আপনাকেও নিজের ঘাড়ের বোঝা করে সে টানবে না।

সমানে সমান হতে হবে চিন্তা, মননে, পরিচয়ে এবং জীবনে চলার পথে। তার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জীবন যুদ্ধ করতে পারলে সে হৃদয়ে রাখবে আপনাকে।নতুবা গোল্ডেন হ্যান্ডশেক ।

এমন মেয়ের প্রেমে কখনোই পড়বেন না — যে মেয়ে পৃথিবীকে নিয়ে ভাবে। কারন এ সারাক্ষণ আপনার প্রেমে মশগুল থাকবে না। নিজেরে পটের বিবি সাজিয়ে সে সার্ভ করবে না। পৃথিবীকে সামনে এগিয়ে নিতে সন্তান, সংসারের পাশাপাশি আরো বহু কাজে সে নিজেকে সঁপে দিবে। সে কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে কাজ করবে কোভিডকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে, ব্রিজের ডিজাইন করবে, উপন্যাস লিখবে, ছাত্র পড়াবে, বিজনেস করবে, অর্থনীতিবিদ হবে, নাসাতে জয়েন করবে, বিমান চালাবে, উবার চালাবে। জব, ঘর সংসার চলে গেলেও সে হার মেনে নিবে না। নতুন কোন পথ সে ঠিক তৈরি করে নিবে।

ভালোবাসবেন না এমন মেয়েকে যে মেয়ে অন্যায় মেনে নিতে পারে না। কারন এরা শুধু ফিজিক্যাল ভায়োলেন্স কে অন্যায় বলে জানে না। এরা মানসিক কষ্টকে, চিট করাকে, কথা দিয়ে কথা না রাখাকেও অন্যায় বলে মানে সম্পর্কে।

যে মেয়ে গসিপ করে না, যে মেয়ে সত্যকে সত্য আর মিথ্যেকে মিথ্যে বলে তার প্রেমে কখনো পড় না। কারন এরা বোরিং হয়।

সবশেষে, নিজেকে ভালোবাসে এমন মেয়ের প্রেমে একদম পড়বেন না। কারন এরা নিজের প্রতি ঘটা এতটুকু অন্যায়, অবহেলা, প্রতারণা কিছুতেই মেনে নিবে না। নিজেকে ভালোবাসা মেয়ে মানেই হচ্ছে স্ট্রং, বোল্ড। সব মেয়ে নিজেকে ভালোবাসতে জানেই না। যারা জানে তারা আনপ্রেডিক্টেবল হয়। এদেরকে দাবিয়ে রাখতে আপনি পারবেন না কিছুতেই।

এ ধরনের মেয়ে এক ধরনের কায়া, এদের এক ধরনের আকর্ষণ আছে যা দূর থেকেই ভালো। খুব কাছ থেকে ওরা সবার সহ্য হয় না। তবে ওদের মোহ আপনি কাটাতেও পারবেন না। এদেরকে ইগনোর করা সহজ একেবারেই না। এ জীবনে ঐ মেয়েকে ভুলে যাওয়া অসম্ভব হবে আপনার পক্ষে। সারাজীবনের জন্য মেয়েটি আপনার মাথার ভেতরের ব্রেইন সেলে ঢুকে পড়বে। রিস্ক কেন নিবেন ?

(আইডিয়া— Martha Rivera Garrido এর লেখা।)

About the Author:

Developer Herwill

Developer Herwill

Leave a Reply

Your email address will not be published.